"করব মোরা মাছ চাষ থাকব সুখে বার মাস"

মাছে ছত্রাক ও পরজীবীজনিত রোগের লক্ষন ও প্রতিকার

ছত্রাক জনিত রোগ:
সাধারনতঃ অসাবধানতার সাথে মাছ নাড়া-চাড়া করলে বা কোন কারনে মাছের দেহে ক্ষতের সৃস্টি হলে পরবর্তীতে ঐ ক্ষতে তুলার ন্যায় ছত্রাক জন্ম দিতে পারে ।

fish disease
প্রতিকার বা নিয়ন্ত্রণ:
১. ২০০ পিপিম লবন জলে সপ্তাহে ১ বার ১ ঘন্টা অথবা মাছ যতক্ষণ সহ্য করতে পারে ততক্ষণ ডুবিয়ে রাখতে হবে ।
২. শতাংশে ১০ গ্রাম হারে পটাশ ২ ডোজ প্রয়োগ করতে হবে।

 

মাছে পরজীবীজনিত রোগ:
রোগের লক্ষনসমূহ ও সনাক্তকরন পদ্ধতি
১. মাছ পুকুরে অস্বাভাবিকভাবে সাঁতার কাটে, অতি দ্রুত লাফালাফি করে ।
২. চামড়া, ফুলকা ও পাখনায় সাদা গোল ছোট গুটি বা দাগ দেখা দেয় ও দেহ বর্ণ ধূসর নীল রং ধারন করে।
৩. শ্বাষকষ্ট হয় খাবার খায় না, ফুলকা ফুলে যায়।
প্রতিকার :
১. মাছের ঘনত্ব কমিয়ে পানি পরিবর্তন করতে হবে ।
২. প্রতি শতাংশে ১ কেজি হারে চুন প্রয়োগ করতে হবে ।
৩. ৫০ পিপিম ফরমালিন দ্রবণে বা ২০০ পিপিম লবন পানিতে গোসল করাতে হবে।
৪. ২-৩ পিপিম পটামিয়াম পারম্যাঙ্গানেট পুকুরে প্রয়োগ করতে হবে।

Share This:

1 Comment
  1. That insight solves the proelbm. Thanks!

Leave a Reply